Amar Praner Bangladesh

হাজরাবাড়ি পৌর আওয়ামী লীগের কমিটি গঠনে অনিয়ম-স্বজনপ্রীতির অভিযোগ

 

মোমিনুল ইসলামঃ

 

হাজরাবাড়ী পৌর আওয়ামী লীগের কমিটি গঠনে ব্যাপক অনিয়ম ও স্বজনপ্রীতির অভিযোগ পাওয়া গেছে। দলের হাই কমান্ডের নির্দেশনা না মেনেই নিস্ক্রিয়, মানসিকভাবে অসুস্থ লোকজন এবং আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে সরাসরি সম্পৃক্ত নয় এমন লোকদের নিয়ে় কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে ব্যাপক অনিয়ম ও স্বজনপ্রীতির অভিযোগ উঠেছে।

এসব কমিটি গঠনে ক্ষেত্রে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী মুজিব কন্যা দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনা এবং সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, মেলান্দহ মাদারগঞ্জের উন্নয়নের রূপকার কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব মির্জা আজম এমপি’র কোনো নির্দেশনা মানা হয়নি। তাদের নির্দেশনা অমান্য করেই এ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে বলে পদ বঞ্চিত ত্যাগী নেতাদের সূত্রে জানা গেছে।

হাজরাবাড়ী পৌর আওয়ামী লীগের দুর্দিনের কাণ্ডারি ও ত্যাগী একাধিক নেতারা জানান, আমরা বিভিন্ন ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়া কল্যাণে জননেত্রী শেখ হাসিনা, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ও আমাদের এমপি মির্জা আজম মহোদয় সহ বিভিন্ন সিনিয়র নেতাদের বক্তব্য শুনে থাকি। তারা বিভিন্ন বক্তৃতায় বলেন দলের দুর্দিনের নির্যাতিত-নিপীড়িত নেতাকর্মীদের কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য অথচ হাজরাবাড়ী পৌর আওয়ামী লীগের কমিটিতে দলের দুর্দিনের নির্যাতিত-নিপীড়িত নেতাকর্মীদের বাদ দিয়ে হাজরাবাড়ী পৌর আওয়ামীলীগের কমিটি গঠন করা হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় এক ত্যাগী নেতা জানান, বর্তমান কমিটির সাধারণ সম্পাদক হচ্ছেন,মোমিনুল ইসলাম বাবু, তার আপন ভাতিজা তথ‍্য ও গবেষণা সম্পাদক এটি এম মোকাব্বের রহমান রক্তিম, বড় ভাই মুখলেছুর রহমান, ও চাচাত ভাই আলাল উদ্দিন কে পৌর আওয়ামীলীগের সদস‍্য পদ দেওয়া হয়েছে।

এছাড়াও পৌর আওয়ামী লীগের কমিটিতে ত্যাগী, যোগ্য ও নির্যাতিতদের বাদ দিয়ে একপেশে, বিতর্কিত এবং হাইব্রিড ও অনুপ্রবেশকারী লোকদের সমন্বয়ে কমিটি গঠন করা হয়েছে। সহসাই এর পরিবর্তন না হলে যে কোন সময় সেখানে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

ত্যাগী, যোগ্য ও নির্যাতিত নেতাকর্মীরা বিষয়টির প্রতি জেলা ও জামালপুরের উন্নয়নের রূপকার আলহাজ্ব মির্জা আজম এমপি মহোদয়ের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।