Amar Praner Bangladesh

হারিয়ে যাওয়া ব্যক্তির ছেলে সেজে হাতিয়ে নিয়েছে কোটি কোটি টাকা

 

আব্দুর রহিম :

২৪/০৫/২০১২ ইং নাগরী ইউনিয়ন পরিষদের প্যাডে সাবেক চেয়ারম্যান এ্যাড. মোহাম্মদ সিরাজ মিয়ার স্বাক্ষরিত প্রত্যয়নপত্রে উল্লেখ করা হয়েছে মোঃ আফাজ উদ্দিন মিয়া, পিতা- মৃত মোঃ মোতালিব মিয়া, মাতা- মোছাঃ আয়াতুন্নেছা, গ্রাম- সেনপাড়া, পো- উলুখোলা, কালিগঞ্জ, গাজীপুর।

তিনি দীর্ঘদিন যাবৎ মানষিক ভারসাম্যহীন ও মস্তিষ্ক বিকৃত অবস্থায় ছিলেন, বর্তমানে তিনি নিখোঁজ অবস্থায় আছেন। এ বিষয় নিয়ে কালিগঞ্জ থানা একটি ডায়েরী হয়। যাহার নং- ৭৯/২০০৯। আফাজ উদ্দিন নিখোঁজ হওয়ার পর তার ভাই সাদেক সহ পরিবারের সবাই তাকে বাংলাদেশের কমবেশি সর্বত্র জায়গায় খুজিয়া ব্যর্থ হয়ে আফাজকে নিয়ে তার পরিবার প্রতিনিয়ত দুশ্চিন্তার মধ্যে দিনাতিপাত করিতেছে।

আফাজের নিখোঁজের সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে একটি কু-চক্রী মহল আফাজ উদ্দিনের নামে থাকা জমির কাগজপত্র হাতিয়ে নেওয়ার লক্ষ্যে জালিয়াতী করে ছেলে সাজিয়ে মিথ্যা ওয়ারিশ সনদ তৈরি করে আফাজ উদ্দিনের নামে থাকা জমি প্রতারণা করে বিক্রয় করিয়া হাতিয়ে নিয়েছে ১ কোটি ৬০ লক্ষ টাকা। আফাজ উদ্দিনের মিথ্যা ছেলের নাম মোঃ সাইফুল ইসলাম, রায়েরচর বিল, কেরানীগঞ্জ, ঢাকা।

উল্লেখিত তথ্য লিখিতভাবে অভিযোগ হিসেবে ইতিমধ্যে আফাজ উদ্দিনের ভাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী, মহাপুলিশ পরিদর্শক সহ বিভিন্ন দপ্তরে প্রেরণ করেছে বলে জানা যায়। পরবর্তী সময়ে আফাজ উদ্দিনের বাকী সম্পত্তি মিথ্যার প্রশ্রয় নেওয়া ছেলে সাইফুল অন্যত্র বিক্রি করে হাতিয়ে নেওয়ার পায়তারা করে আসছে।

ইতিমধ্যে সাদেক সিনিয়র চীফ জুডিশিয়্যাল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত গাজীপুরে একটি মোকাদ্দমা দায়ের করেছেন। যাহার নং- ১৬৫/২০১৮। সাইফুলের ইতিবৃত্ত নিয়ে দৈনিক আমার প্রাণের বাংলাদেশের একটি অনুসন্ধানী দল অনুসন্ধান করছে। চোখ রাখুন আগামী পর্বে- যেখানে থাকবে সাইফুলের প্রকৃত পিতার পরিচয়। থাকবে সাইফুলের প্রতারণা অভিনব গল্প কাহিনী।